ভ্রমণে টাকা বাঁচাতে চাইলে

সপ্তাহের ছুটির দিনগুলোতে সাধারণত হোটেলগুলোতে ছাড় দেওয়া হয় না। একইভাবে পরিবহনেও খরচ বেশি হয়। তাই ভ্রমণে খরচ বাঁচাতে চাইলে ছুটির দিন এড়িয়ে চলতে হবে। আপনি যদি বিদেশ ভ্রমণে গিয়ে দৈনন্দিন ব্যবহারের ক্রেডিট কার্ডটি ব্যবহার করেন তাহলে তা ব্যয় বাড়াবে। কারণ এক দেশের ক্রেডিট কার্ড অন্য দেশে ব্যবহারের কিছু বাড়তি চার্জ থাকে। তাই ক্রেডিট কার্ডের বদলে অন্য বিকল্প ব্যবহার করতে পারেন। বিদেশে মুদ্রা বিনিময় করতে গিয়ে এয়ারপোর্টকে সর্বদা এড়িয়ে চলতে হবে। কারণ এয়ারপোর্টের মুদ্রা বিনিময়ের বুথ সর্বদা ব্যয়বহুল এবং এতে মুদ্রার বিনিময়মূল্য ভালো পাবেন না। এর বদলে একটু খোঁজখবর নিয়ে ব্যাংক কিংবা ভালো মুদ্রা বিনিয়ময়কারী প্রতিষ্ঠান থেকে মুদ্রা বিনিময় করুন।

ভ্রমণের সময় সরাসরি ফ্লাইট ব্যবহারে যাতায়াতে কিছুটা সুবিধা হলেও অনেক সময় তা ব্যয়বহুল হয়ে দাঁড়ায়। আপনি যদি কিছুটা কম দামের টিকিট কাটতে চান তাহলে সরাসরি ফ্লাইটের বদলে যাত্রাবিরতিযুক্ত ফ্লাইট নিতে পারেন। ভ্রমণের সময় আপনার যদি অর্থ সাশ্রয়ের ইচ্ছা থাকে তাহলে ব্যয়বহুল খাবার এড়িয়ে যান। বিভিন্ন শহরে এমন কিছু ঐতিহ্যবাহী রেস্টুরেন্ট থাকে যেগুলোর প্রচুর ক্রেতা এবং দামও কম। এ ধরনের হোটেল থেকে খাবার কিনুন। এ ছাড়া প্রচুর হোটেলেই থাকার পাশাপাশি নাশতার ব্যবস্থা থাকে। সে সুবিধাও গ্রহণ করুন।

পর্যটনের জন্য কিছু মৌসুম সুপরিচিত। এ সময়ে হোটেল-রেস্টুরেন্টে বাড়তি ভিড় দেখা যায়। ফলে ভ্রমণ করার ব্যয়ও বেড়ে যায়। তাই কম খরচে ভ্রমণের জন্য একটু ভিন্ন সময় বেছে নিতে হবে। এয়ারপোর্টের প্রায় সব সেবাই ব্যয়বহুল। আপনি যদি এয়ারপোর্ট থেকে গাড়ি ভাড়া করেন তাহলে তা সাধারণ ট্যাক্সির তুলনায় ব্যয়বহুল হয়ে থাকে। একইভাবে এয়ারপোর্টের খাবারের ব্যয়ও বেশি হয়। এসব কারণে এয়ারপোর্টের যেকোনো সেবা গ্রহণের আগে ব্যয়ের দিকটি হিসাব করে নিন।

About admin

Check Also

মোহিত করবে টানা চোখ

জন্মগতভাবেই একেকজন মানুষের চোখ একেকরকম। কারও কারও চোখ বড় আবার কারও আকারে ছোটো। অনেকেই নিজের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *