ভ্রমণকে উপভোগ্য করতে ৬ বিষয়ে সতর্ক থাকুন

ভ্রমণে গিয়ে ছবি তুলতেই পারেন। এসব ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করাও অস্বাভাবিক নয়। তবে অতিরিক্ত ছবি পোস্ট করলে হিতে বিপরীত হতে পারে। দেখা যাবে, অনেকেই এমন সব মন্তব্য করেছে, যা আপনাকে প্রচণ্ড কষ্ট দেবে। পেশাদার কাজ মাথায় নিয়ে ভ্রমণে যাবেন না। খুব বিপদে না পড়লে অভ্যাসবশত ই-মেইল দেখাও ঠিক নয়। এতে অযথা আয়েশি মেজাজটা বিগড়ে যায়। কাজের পেরেশানি ঘাড়ে চেপে বসে। ঘুরতে গেলে এটা-ওটা খেতে মন চায়। যেখানে যাচ্ছেন সেখানকার স্থানীয় খাবার চেখে দেখতে ইচ্ছা করে। কিন্তু স্বাস্থ্যের সঙ্গে আপস করা উচিত নয়। এতে হজমের সমস্যা ঘটে যাবে। ঘুরতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়বেন। সুস্থ না থাকলে ভ্রমণই বৃথা।

আবহাওয়া যেমনই থাক, ইচ্ছা করুক বা নাই করুক, দেহে পানির অভাব ঘটতে দেবেন না। দেহ পানিশূন্য হলেই বিপদ। তা ছাড়া ভ্রমণ মানেই ঘাম আর ক্লান্তি। তাই ঘন ঘন লেবু-পানি, বাটার মিল্ক, ডাবের পানি এবং সতেজ ফলের শরবত খান। শরীরের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত করতে ঘুম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এটি ছাড়া দেহের শক্তি ফিরে আসে না। পরিশ্রান্ত ও অবসন্ন দেহে প্রাণশক্তি ফিরে আসে স্বাস্থ্যকর ঘুমের মাধ্যমে। গবেষণায় দেখা গেছে, প্রকৃতির কাছাকাছি গেলে মানুষের মনটা স্থিত হয়ে আসে। তখন মনে আলস্য ভর করে। কিন্তু এ জন্য হোটেলকক্ষে ঝিমিয়ে বসে থাকা যাবে না। কিংবা ঝোঁকের বশে অ্যালকোহল বা অন্যান্য মাদকে ভেসে যাওয়াও চলবে না। এতে আপনার পুরো ভ্রমণই ভেস্তে যেতে পারে।

About admin

Check Also

শিশুর লালন-পালনে অন্তরায় হয়ে উঠছে ব্যস্ত নাগরিক জীবন

শিশুকে কিভাবে বড় করে তুলতে হবে এসব বিষয় নিয়ে বহু বাবা-মায়েরই বিভ্রান্তি রয়েছে। সম্প্রতি শিশু, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *